উচ্চমাধ্যমিকে ফলের জের, মহুয়াকে তলব করল নবান্ন

সংসদের সঙ্গে নবান্নের সমন্বয় ঘটিয়ে ফেল করা পড়ুয়াদের ক্ষেত্রে প্রকৃতপক্ষে কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়,তা রূপরেখা এদিন বৈঠকে ঠিক হল বলে মনে করা হচ্ছে।

Written by SNS Kolkata | July 25, 2021 4:49 pm

নবান্ন (Photo:[email protected])

উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাসকে নবান্নে তলব করা হল। উচ্চমাধ্যমিকের ফল নিয়ে বিস্তর অভিযােগ রয়েছে। সেই অভিযােগের পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণঃ দ্বিবেদী তাকে নবান্নে তলব করেন। এই নিয়ে বিশদে দু’জনের মধ্যে আলােচনা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এই বৈঠকের পরেই নবান্নের তরফে সংসদের উদ্দেশ্যে একটি বিবৃতি প্রকাশ করা হয়। সেখানে বলা হয়েছে, যে সমস্ত অভিযােগ এসেছে, তা রাজ্যের সমস্ত স্কুলের প্রধানশিক্ষক শিক্ষিকাদের খতিয়ে দেখতে হবে। তারপর তার রিপাের্ট জমা করতে হবে সংসদে।

অভিযােগ জানাতে হবে সাতদিনের মধ্যে। পড়ুয়াদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে প্রতিটি অভিযােগকে গুরুত্ব সহকারে দেখতে হবে। কারণ এবার মূল্যায়ন পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে। ফলে কোথাও কোনও সমস্যা হলে তার দায় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের উপরে বর্তায়। এবার উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বর এবং প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মুল্যায়ন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার পরীক্ষার ফল ঘােষণা হলে দেখা যায়, ৯৭,৭০ শতাংশ ছাত্রছাত্রী পাশ করেছে। কলা বিভাগে পাশের হার ছিল ৯৮,৪ শতাংশ। বিজ্ঞান বিভাগে ৯৯,২৮ শতাংশ, বাণিজ্য বিভাগে ৯৯,০৮ শতাংশ।

রেকর্ড সংখ্যক ছাত্রছাত্রী পাশ করলেও গত দু’দিনে রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে ফুল নিয়ে ভুরি ভুরি অভিযােগ জমা পড়েছে। কোথাও কোথাও স্কুল ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখিয়েছে পড়ুয়ারা। রাস্তা অবরােধও করা হয়েছে। স্কুলের চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করা হয়েছে।

পড়ুয়ারা প্রশ্ন তুলেছে, পরীক্ষাই হল না, ফেল করলাম কী করে? সবাইকে পাশ করিয়ে দিতে হবে, এমন দাবি উঠে আসছে অভিভাবকদের তরফে। পুরাে পরিস্থিতিতে এবার হস্তক্ষেপ করল নবান্ন। সে কারণেই উচচমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাসের সঙ্গে বৈঠক করলেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিদেবী।

এই বৈঠকের মাধ্যমে সংসদের সঙ্গে নবান্নের সমন্বয় ঘটিয়ে আগামী দিনে ফেল করা পড়ুয়াদের ক্ষেত্রে প্রকৃতপক্ষে কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়, তারই রূপরেখা এদিনের বৈঠকে ঠিক হল বলে মনে করা হচ্ছে।