বিদায় নিলেন ‘ছুটি’র নায়ক মৃণাল

বর্ষীয়ান অভিনেতা এবং গায়ক মৃণাল মুখােপাধ্যায়ের জীবনাবসান হল। বেশ কিছুদিন ধরে তাঁর ক্যান্সারের চিকিৎসা চলছিল। সেইসঙ্গে জন্ডিসে আক্রান্ত হওয়ায় সােমবার তাঁকে দক্ষিণ কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

Written by SNS Kolkata | May 8, 2019 10:53 am

বর্ষীয়ান অভিনেতা এবং গায়ক মৃণাল মুখােপাধ্যায় (Photo: [email protected])

বর্ষীয়ান অভিনেতা এবং গায়ক মৃণাল মুখােপাধ্যায়ের জীবনাবসান হল। বেশ কিছুদিন ধরে তাঁর ক্যান্সারের চিকিৎসা চলছিল। সেইসঙ্গে জন্ডিসে আক্রান্ত হওয়ায় সােমবার তাঁকে দক্ষিণ কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

যাটের দশক থেকে মৃণাল মুখােপাধ্যায় সিনেমা জগতের সঙ্গে যুক্ত। অরুন্ধতী দেবী পরিচালিত ‘দুটি’ ছবিতে প্রথম নায়কের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল মৃণাল মুখােপাধ্যায়-কে। তপন সিংহ পরিচালিত অনেক ছবিতেও অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। পরবর্তীকালে বড় পর্দার পাশাপাশি ছােট পর্দার ধারাবাহিকেও তিনি অভিনয় করেছেন।

‘আমলকি’ ধারাবাহিকে নবকুমারের ভূমিকায় তাঁর অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে। এমনকী যাত্রার মঞ্চেও অভিনয় করেছেন মৃণাল মুখােপাধ্যায়। পার্শ্বচরিত্র বা খলচরিত্রেই তাঁকে বেশি দেখা যেত। ঠোটের কোণে একটা বাঁকা হাসি এবং উজ্জ্বল চোখের স্থির দৃষ্টি আর মধ্যভূরুতে জোড়া ভাজের জন্যই তাঁর অভিনীত নেগেটিভ রােলগুলি জীবন্ত হয়ে উঠত।

অভিনয়ের সঙ্গে ভালো গানও গাইতেন মৃণাল মুখােপাধ্যায়। ১৯৫৫ সালে ‘দুই বােন’ ছবিতে চাইল্ড আক্টর হিসেবে প্রথম সিনেমায় হাতেখড়ি মৃণাল মুখােপাধ্যায়ের। ‘শ্ৰীমান পৃথ্বীরাজ’, ‘গল্প হলেও সত্যি’, ‘নায়িকা সংবাদ’ ইত্যাদি ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি।

গুলজার-এর নির্দেশিত ‘মৌসম’-এও তাঁর অভিনয় মনে রাখার মতাে। ‘কেলাে ভানু’, ‘মৃত্যুঘন্টা’ বহু বাণিজ্যিক ছবি তাঁর অভিনয়ে সমৃদ্ধ হয়েছে। চেনা ছকের বাইরে ‘পােস্ত’ এবং ‘টোয়েন্ট ইয়ার্ডস’, ‘ইংলিশ ভার্সেস ইংলিশ’ ইত্যাদি ছবিতেও তিনি অভিনয় করেছেন।

মৃণাল মুখােপাধ্যায়ের সাম্প্রতিক অভিনীত ছবিগুলির মধ্যে রয়েছে ‘ব্যোমকেশ ও চিড়িয়াখানা’।

মৃণাল মুখােপাধ্যায়ের দুই সন্তান অভিনেতা দেবপ্রিয় মুখােপাধ্যায় ও সুগায়িকা জোজো বিনােদন জগতে সুপ্রতিষ্ঠিত। দিনকয়েক আগেই মৃণাল মুখােপাধ্যায় তাঁর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে স্ত্রীর জন্মদিন পালন করেছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে টলিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিতে শােকের ছায়া নেমে এসেছে।