ব্রেন-খেকো অ্যামিবার থাবায় কেরলে আরেক কিশোরয়

Written by SNS July 6, 2024 7:21 pm

তিরুবন্তপুরম, ৬ জুলাই– পুকুর বা নদীতে নেমে স্নান, তারপরই হচ্ছে মৃতু্য! কেরলে দিন দিন বাড়ছে ব্রেন-খেকো অ্যামিবার সংক্রমণ৷ গত ৪ জুলাই ১৪ বছরের এক কিশোরের মৃতু্য হয়েছিল এই কারণে৷ এখন আরও এক কিশোর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷ ঠিক কী কারণে এই বিরল সংক্রমণ বাড়ছে তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে৷ রাজ্যের সাধারণ মানুষের মধ্যে বাড়ছে আতঙ্ক৷

গত মে মাস থেকে এখনও পর্যন্ত ৪জন এমন রোগে আক্রান্ত হয়েছে কেরলে৷ তাদের মধ্যে তিনজনেরই মৃতু্য হয়েছে৷ বেশিরভাগ রোগীর বয়সই ছিল ১৮ বছরের কম৷ বর্তমানে আরও এক ১৪ বছরের কিশোর সঙ্কটজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি৷ কিন্ত্ত কেন আচমকা এই বিরল রোগের প্রকোপ বাড়ছে রাজ্যে তা বুঝে উঠতে পারছে না অনেকেই৷ তবে চিকিৎসকদের একটা বড় অংশ মনে করছে দূষিত জল থেকেই সংক্রমণ ছড়াচ্ছে৷

সাধারণত দূষিত জলে থাকে এই অ্যামিবা৷ দেশের একাধিক নদী, পুকুরের জলে এই ধরনের অ্যামিবার খোঁজ মিলেছে৷ তাই চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন, কোনও জায়গায় স্নান করতে নামার আগে সতর্ক হতে৷ স্নানের সময়ই অজান্তে অ্যামিবা মানবশরীরে ঢুকে যায় নাক, কানের ফুটো দিয়ে৷ তারপর তা সোজা মস্তিষ্কে গিয়ে ব্রেনের অংশ খেতে শুরু করে৷

গত শুক্রবার এই বিষয় নিয়ে বৈঠক ডেকেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন৷ তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, যে সমস্ত জায়গার পুকুর বা নদীর জল পরিষ্কার নয় সেখানে স্নান করা বন্ধ করতে হবে৷ পর্যটকরা তো বটেই, স্থানীয় কোনও বাসিন্দাও যাতে সেখানে নামতে না পারেন তার ব্যবস্থা করতে হবে৷ এরপর সেই পুকুর বা জলাশয়ে দ্রুত পরিষ্কার করার কথাও বলা হয়েছে৷ একই সঙ্গে তিনি বিভিন্ন সুইমিং পুলের জলের দিকেও পর্যাপ্ত নজর দিতে বলেছেন৷ কারণ সেখানেই বেশিরভাগ বাচ্চারা নামে৷
অ্যামিবা হল এককোষী প্রাণী৷ খালি চোখে দেখা যায় না এই প্রাণীকে৷ অ্যামিবা হল থার্মোফিলিক৷ উষ্ণ প্রস্রবণ বা গরম জলে এই প্রাণীকে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়৷ ১১৩ ডিগ্রি ফারেনহাইট  (৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস) তাপমাত্রায় ভাল থাকে এই অ্যামিবারা৷ সে জন্য হট ওয়াটার লেক বা উষ্ণ প্রস্রবণগুলিতে এদের দেখা মেলে অনেক বেশি৷