এমএলসি নির্বাচনে ক্রস ভোটিংয়ের শঙ্কায় বিধায়কদের হোটেলে পাঠাল বিজেপি

Written by SNS July 10, 2024 4:52 pm

Eknath Shinde, Devendra Fadnavis.

মুম্বই, ১০ জুলাই– বরাবর দেখা যায় বিজেপির ভয়েই রাজ্যের শাকসদল হোক বা বিরোধীপক্ষ ভয় পেতে থাকে৷ কারণ বিজেপির ‘অপারেশ লোটাস’ বেশ বিখ্যাত গোটা দেশ জুড়ে৷ কখন কাকে ভাঙিয়ে গোটা দল ফেলে দেওয়া যায় তা খেলতে সিদ্ধহস্ত বিজেপি দল৷ কিন্তু এবার যেন এর উলটপুরান৷ মহরাষ্ট্রে চিন্তায় এবার বিজেপি৷ শুক্রবার মহারাষ্ট্রে বিধান পরিষদ বা এমএলসি নির্বাচন ঘিরে ঘোর চিন্তায় পড়েছে বিজেপি, শিবসেনার একনাথ শিন্ডে এবং অজিত পাওয়ারের এনসিপির শাসক জোট৷ ভয় এতটাই গ্রাস করেছে যে, ইতিমধ্যেই ক্রস ভোটিংয়ের আশঙ্কায় শাসক জোট বিধায়কদের হোটেলে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷

এদিকে আর এক সমস্যা দেখা দিয়েছে হোটেল নিয়ে৷ মুকেশ অম্বানির ছেলের বিয়ে উপলক্ষে দক্ষিণ মুম্বইয়ের সব পাঁচতারা হোটেল বুক হয়ে আছে৷ শুক্রবার থেকে তিনদিন চলবে বিয়ের অনুষ্ঠান৷ খালি নেই আশপাশের রিসর্টও৷ কংগ্রেস সহ বিরোধী শিবির তাই মুম্বইয়ের বাইরে রিসর্টে নিয়ে তুলেছে বিধায়কদের৷ অন্যদিকে, বিধায়কদের দল এবং পুলিশ-প্রশাসনের নজরে রাখতে বিজেপি সহ শাসক জোট মুম্বইতেই একাধিক হোটেলে ঘর বুক করেছে৷
সদ্য অনুষ্ঠিত লোকসভা ভোটের পরই যেন সব ওলটপালট হয়ে গিয়েছে৷ মহারাষ্ট্রে একনাথ শিন্ডের সরকার ক্ষমতায় আসার পর সেখানে বিজেপি জোট ক্ষমতায় অঙ্কুশ মনে করা হলেও এবার তাদের ভগ্ন দশা যেন প্রকট হয়ে দেখা দিয়েছে মহারাষ্ট্রে৷ এতদিন বিরোধীদেরই ঘর সামলাতে হিমশিম খেতে হত৷

১১টি আসনে শুক্রবার ভোট দেবেন বিধানসভা এবং বিধান পরিষদের বর্তমান সদস্যরা৷ কিন্ত্ত বিরোধী কংগ্রেস, উদ্ধব ঠাকরের শিবসেনা এবং শরদ পাওয়ারের এনসিপি একজন অতিরিক্ত প্রার্থী দিয়ে সহজ লড়াই কঠিন করে তুলেছে শাসক জোটের জন্য৷ লোকসভা ভোট দেখিয়ে দিয়েছে বিজেপির অপরাশেন লোটাসের কার্যক্ষমতা শেষ৷ তারই পরিণামে মহারাষ্ট্রে ভরাডুবি হয়েছে বিজেপি ও তাদের সহযোগী দলগুলির৷ ৪৭টির মধ্যে ৩০ আসন দখল করে শাসক শিবিরকে চাপে রেখেছে বিরোধীরা৷ আসছে নভেম্বরে রাজ্যে বিধানসভা ভোট৷ এই সময় বিধান পরিষদ ভোটে শাসক জোটের বিধায়করা ক্রস ভোট দিয়ে বিরোধী প্রার্থীকে জিতিয়ে দিলে মুখ পুড়বে সন্দেহ নেই৷ ভয় বেশি মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডের৷ তাঁর সঙ্গে থাকা মন্ত্রী, বিধায়করা অনেক দিন ধরেই উদ্ধবের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন৷ মন্ত্রী কিংবা অন্য কোনও সরকারি পদ না পাওয়া বিধায়করা উদ্ধব শিবিরে ফিরতে মুখিয়ে আছেন৷