বিচারক পরিবারের উপর নজরদারি, তদন্তে লালবাজার

এক জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবারের উপর নজরদারি চালানোর অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করেছে লালবাজার। খতিয়ে দেখা হচ্ছে বিভিন্ন রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ।

Written by SNS Kolkata | May 7, 2022 4:17 pm

লালবাজার (Photo: [email protected])

কলকাতা নিবাসী এক জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবারের উপর নজরদারি চালানোর অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করেছে লালবাজার। খতিয়ে দেখা হচ্ছে বিভিন্ন রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ।

লালবাজার সুত্রে প্রকাশ, ব্যাঙ্কশাল আদালতের ৬ নং মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবারের উপর নজরদারি চালানোর অভিযোগ উঠল জনাকয়েক অজ্ঞাত দুষ্কৃতিদের বিরুদ্ধে এই ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যেই অভিযোগ জানানো হয়েছে কলকাতা পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েলের কাছে। ব্যাঙ্কশাল আদালতের ৬ নং মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সোহম মুখোপাধ্যায়ের পরিবারের উপর নজরদারি চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

নিরাপত্তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকা এই বিচারকের পরিবারের অভিযোগ, ‘গত ৩ মে রাত একটা থেকে তিনটে পর্যন্ত বেশ কয়েকজন যুবক ম্যাজিস্ট্রেটের বাড়ির উপর নজর রাখছিল। তারা প্রত্যেকেই মোটরবাইকে করে এসেছিল’।

ইতিমধ্যেই ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবার কলকাতা পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছে। ইমেল এবং চিঠি মারফত একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে স্থানীয় নিউ আলিপুর থানায়। পাশাপাশি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে কলকাতা পুলিশের নগরপাল বিনীত গোয়েলের কাছেও।

লালবাজার সূত্রে প্রকাশ, অভিযোগ পেয়েই পুলিশ কমিশনার সরাসরি যোগাযোগ করেন কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান মুরলীধর শর্মা এবং কলকাতা পুলিশের ডিসি সাউথ আকাশ মাগারিয়ার সঙ্গে। ঘটনাস্থলে যায় নিউ আলিপুর থানার পুলিশ । ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবারকে নিরাপত্তা দেওয়ার বন্দোবস্ত করেছে লালবাজার।

গত ৩ মে রাতে এই ঘটনা ঘটে। সে দিন রাতে বেশ কয়েকজন যুবক বাইকে করে এসে ওই ম্যাজিস্ট্রেটের বাড়ির সামনে ঘুরে বেড়ায় এবং তাদের বাড়ির নেমপ্লেট-এর ছবি তোলে। ইতিমধ্যেই গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে কলকাতা পুলিশের গুন্ডা দমন শাখার গোয়েন্দারা।

গত বৃহস্পতিবার রাতেই বিচারক পরিবারের তরফে নিউ আলিপুর থানায় বিষয়টি জানিয়েছে। পাশাপাশি নিউ আলিপুরের বেশকিছু রাস্তার সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ এবং বিশেষ করে ব্যাঙ্কশাল আদালতের ৬ নং মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের বাড়ির সিসিটিভি ফুটেজকে হাতিয়ার করে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করছেন গোয়েন্দারা। পাশাপাশি এই বিচারকের এজলাসে মামলা সংক্রান্ত কোন বিবাদ পক্ষে বিপক্ষে রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানা গেছে।