আজ ইডেনে শ্রেয়সদের সামনে হার্দিকরা

Written by SNS May 11, 2024 1:43 pm

পূর্ণেন্দু চক্রবর্তী: চলতি মরশুমে হার্দিক পাণ্ডিয়ার মুম্বই ইন্ডিয়ান্স যেভাবে আইপিএল ক্রিকেট শেষ করতে চলেছে, তাতে একরাশ দুঃখ জমা থাকবে এই শিবিরে৷ মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের এই অবস্থার জন্য শুধু অধিনায়ককে দোষ দিলে হবে না, দলের অন্যান্য খেলোয়াড়রা কী ভূমিকা নিয়েছিলেন সে প্রশ্ন উঠতেই পারে৷ তবুও শনিবারের ইডেন উদ্যানে একটা শেষ কামড় দিতে চলেছে হার্দিক ব্রিগেড কলকাতা নাইট রাইডার্সকে৷ কলকাতা এবারে দুরন্ত পারফরম্যান্স করে চলেছে৷ ঘরের মাঠে কলকাতা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে মুম্বইয়ের কাছ থেকে ম্যাচটা ছিনিয়ে নিতে চাইছে৷ তার প্রধান কারণ এই ম্যাচটা জিতলেই শ্রেয়স আইয়াররা প্লে-অফ ম্যাচে খেলার সার্টিফিকেটটা হাতে পেয়ে যাবে৷

আবহাওয়া অফিস থেকে যতই বৃষ্টির কথা বলা হোক না কেন, ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে তা বাসা বাঁধতে পারছে না৷ হঠাৎই দেখা গেল, টিকিটের হাহাকার৷ যে দলটা লিগ টেবলে নবম স্থানে রয়েছে, সেই খেলা দেখার জন্য হাপিত্যেস করছেন দর্শকরা৷ মনে হয়, ভারতীয় দলের অধিনায়ক রোহিত শর্মা রয়েছেন মুম্বই দলে৷ তার পাশে সূর্য কুমার যাদব, হার্দিক পাণ্ডিয়া ও যশপ্রীত বুমরার মতো খেলোয়াড় রয়েছেন৷ যদি অঘটন ঘটিয়ে কিছু করতে পারে মুম্বই দল, তাহলে সেটাই হবে তাঁদের কাছে বড় প্রাপ্তি৷ ইতিমধ্যেই মুম্বই দলের পারফরম্যান্স নিয়ে নানারকম কথা বলছেন অনেকেই৷ এমনকি সব দোষ ঠেলে দেওয়া হচ্ছে অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়ার দিকে৷ অনেকেই বলছেন, দশ বছর ধরে রোহিত শর্মা যেভাবে দলটাকে টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন, সেখানে হঠাৎই কর্মকর্তারা অধিনায়কের ব্যাটনটা হার্দিক পাণ্ডিয়াকে তুলে দেওয়া ঠিক হয়নি৷ যার ফলে মুম্বই শিবিরে সমন্বয়টা ভেঙে গিয়েছে৷ কিন্ত্ত অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়া এটা কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না৷ তিনি মনে করেন, কোনও কোনও মরশুম খারাপ হতেই পারে৷ তাই বলে, একজনের উপরে দোষ চাপিয়ে দিয়ে অন্যরা দূরে সরে থাকবেন, তা হয় না৷ ক্রিকেট খেলাটা একার নয়৷ দলগত সংহতির পরিচয় দিয়ে মাঠে নামতে হয়৷ সেখানে কোনও কোনও সময় কোনও দলের বিরুদ্ধে খারাপ ফল হতেই পারে৷ তাই বলে দোষারোপের মাত্রাটা কোনও একজনের উপরে চাপিয়ে দেওয়াটা কখনওই ঠিক নয়৷

কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার বেশ খোলা মনে সতীর্থ খেলোয়াড়দের সঙ্গে অনুশীলন করলেন৷ আত্মবিশ্বাসে ভরপুর কলকাতা দল৷ শ্রেয়স আইয়ারদের সঙ্গে খোস মেজাজে কথা বললেন মেন্টর গৌতম গম্ভীর৷ শরীরী ভাষায় বোঝা গেল তিনি জিততে চাইছেন৷ ইডেনে ঘরের মাঠে জয় চাইছেন মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে৷ এই জয়টা অত্যন্ত প্রয়োজন বলে তিনি মনে করছেন৷ আসলে জয় পেলে প্লে-অফ ম্যাচের রাস্তাটা পরিষ্কার হয়ে যাবে৷ খেলোয়াড়দের এটাও মনে করিয়ে দিয়েছেন হয়তো৷ একটা ভুল হলে ম্যাচ হাতছাড়া হয়ে যাবে৷ আবার অতি আত্মবিশ্বাসী হলেও সমস্যা তৈরি হয়৷ তখন পচা শামুকে পা কেটে যায়৷ হয়তো সেই কারণেই সাবধান বার্তা দিয়েছেন মেন্টর গৌতম গম্ভীর৷ বর্তমানে কলকাতা দলে দুই ওপেনার দুরন্ত ব্যাট করছেন৷ একদিকে ফিল সল্ট ও অন্যদিকে সুনীল নারাইন যেভাবে খেলে চলেছেন, তাতে কলকাতা দলের বিরাট ভরসা৷ দুই ওপেনারের ব্যাট থেকে প্রচুর রান আসছে৷ অনেক সময় দেখা যায়, প্রথম দশ ওভারে তাঁরা যেভাবে ঝড়ের গতিতে রান করে যান, সেটাও কিন্ত্ত দলের কাছে বাড়তি সুবিধা৷ প্রথম দশ ওভারে যদি বড় রান উপহার দিতে পারেন স্কোর বোর্ডে, তাহলে প্রতিপক্ষ দলের বোলাররা কিছুটা ভেঙে পড়েন৷ তাঁদের ছন্দ হারিয়ে যায়৷ উইকেটের বাইরে তখন বল ফেলতে থাকেন আর সেই বলে ব্যাটসম্যানরা ছক্কা আর চার মেরে দলের স্কোরবোর্ডকে ভালো জায়গায় নিয়ে যান৷ এটা কিন্ত্ত দলের একটা অঙ্ক৷ আবার এও দেখা যায়, বড় অঙ্কের রান নিয়ে প্রতিপক্ষ দলের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে হার স্বীকার করতে হয়েছে ইডেন উদ্যানেই৷ আর এই ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছেন দর্শকরা পাঞ্জাব কিংস ও কলকাতা নাইট রাইডার্সের খেলা৷ আবার রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে কলকাতা এক রানে জয় পেয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে৷ তবে গত ম্যাচে দিল্লিকে যেভাবে পরাস্ত করে‌ে্ছ কলকাতা দল, তাতে আশা করা যায়, সেই আত্মবিশ্বাসে মুম্বই দলকেও চাপের মধ্যে রাখবেন শ্রেয়স আইয়াররা৷ এই দলে অবশ্য মারকুটে খেলোয়াড় রিঙ্কু সিং ও আন্দ্রে রাসেল আছেন৷ এই দুই ক্রিকেটার অবশ্য এবারে ভালো খেলতে পারছেন না৷ বিশেষ করে রিঙ্কু তো অফ ফর্মে রয়েছেন৷ তবে গত ম্যাচে দিল্লির বিরুদ্ধে একটু হাত খুলে খেলার চেষ্টা করেছেন আন্দ্রে রাসেল৷ শুধু ব্যাটে নয়, বলেও তিনি অনেককেই ছাপিয়ে গেছেন৷ তিন ওভার বল করেছিলেন এবং তিনটি উইকেট নিয়েছিলেন৷ দিনের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে সম্মান পেয়েছিলেন৷ এবারে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে আন্দ্রে রাসেল কেমন খেলেন, সেটা দেখার বিষয়৷ বোলার বরুণ চক্রবর্তী ও অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়াররা ঝলসে উঠতে পারেন কিনা হার্দিক পাণ্ডিয়াদের বিরুদ্ধে, তা দেখার জন্য অপেক্ষা করবেন দর্শকরা৷