সিবিএসই’র পাশাপাশি আইসিএসই’র দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির বাকি পরীক্ষা বাতিল

সিবিএসই’র পথেই হাঁটল সিআইএসসিই। এ বছরের মতো বোর্ডের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির আইসিএসই এবং আইএসসি’র বকেয়া পরীক্ষাগুলি বাতিল করে দেওয়া হচ্ছে।

Written by SNS New Delhi | June 26, 2020 11:59 am

প্রতিকি ছবি (File Photo: iStock)

সিবিএসই’র পথেই হাঁটল কাউন্সিল ফর দ্য ইন্ডিয়ান স্কুল সার্টিফিকেট এক্সামিনেশন বা সিআইএসসিই। এদের তরফে জানানো হয়েছে। এ বছরের মতো বোর্ডের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির আইসিএসই এবং আইএসসি’র বকেয়া পরীক্ষাগুলি বাতিল করে দেওয়া হচ্ছে।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আবহে বর্তমানে পিছিয়ে যাওয়া পরীক্ষাগুলি জুলাই মাসে হওয়ার কথা ছিল। এই সংক্রান্ত এক মামলার শুনানি চলাকালীন বৃহস্পতিবার আইসিএসই’র তরফে আইনজিবী জয়দীপ গুপ্তা সুপ্রিম কোর্টে জানান, তিনি সিবিএসই’র সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেন এবং সেজন্যই আইসিএসই’র পরীক্ষাও বাতিল করতে চলেছে বোর্ড। তিনি আরও জানান, এই মর্মে খুব শীঘ্রই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

বৃহস্পতিবার শীর্ষ আদালতে সিবিএসই পরীক্ষা সংক্রান্ত এক আবেদনের শুনানি হয়। সেখানেই সিবিএসইর তরফে জানানো হয়, জুলাই মাসে তাদের পূর্ব নির্ধারিত দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা হচ্ছে না। বাতিল হচ্ছে দশম শ্রেণির বকেয়া পরীক্ষাও। এই সংক্রান্ত বিশেষজ্ঞ কমিটির পর্যালোচনার পর কেন্দ্র ও সিবিএসই বোর্ডের তরফে বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি খানউইলকরের বেঞ্চকে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে সিবিএসই বোর্ড বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছিল, দ্বাদশ শ্রেণির বাকি থাকা পরীক্ষাগুলি ১ জুলাই থেকে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে নেওয়া হবে। ওই বিজ্ঞপ্তি বাতিলের আবেদন জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের হয়।

পরীক্ষার্থীদের অবিভাকদের একাংশ শীর্ষ আদালতে আর্জি জানায় যে, দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পড়ুয়াদের নিরাপত্তার স্বার্থে পরীক্ষা গ্রহণের উক্ত বিজ্ঞপ্তি বাতিল করা হোক। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সেই মামলার শুনানি হয় এদিন। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও তজ্জনিত লকডাউনের জেরে বেশ কয়েকটি পরীক্ষা বাকি থাকতেই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সম্প্রতি আনলক শুরু হতেই সেই পরীক্ষাগুলির সময়সূচি পুনরায় প্রকাশ করা হয়।

টুইট করে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক ২৯ টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে পরীক্ষার কথা জানিয়েছিল। তবে পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকদের একাংশ এই নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন। এদিন মামলাটির শুনানি হয় বিচারপতি এ এম খানউইলকর, বিচারপতি দীনেশ মহেশ্বরী এবং বিচারপতি সঞ্জীব খান্নার বেঞ্চে।

আবেদনকরীদের দাবি ছিল, করোনা সংক্রমণের ভয়াবহ পরিস্থিতিতে পরীক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থেই পরীক্ষা গ্রহণের বিজ্ঞপ্তি বাতিল করা হোক। যেসব পরীক্ষা ইতিমধ্যেই নেওয়া হয়ে গেছে, তার ফলাফল এবং বাকি বিষয়গুলির ক্ষেত্রে অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নের ভিত্তিতে ফল ঘোষণা করা হেক।

এদিন শুনানি চলাকালীন কেন্দ্রের তরফে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা জানান, রাজ্যগুলির সঙ্গে আলোচনার পর ১ জুলাই থেকে দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির যে পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল, তা বাতিল করা হচ্ছে। বোর্ডের তরফে শীর্ষ আদালতকে জানানো হয়, দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার্থীরা চাইলে পরে পরীক্ষা দিতে পারবে। তা ছাড়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরীক্ষার আয়োজনের বিষয়ে চিন্তাভাবনা করা হবে।

সিবিএসই এই সিদ্ধান্ত জানানোর অব্যবহিত পরেই আইসিএসইও জানিয়ে দেয় তারাও সেই পদাঙ্কই অনুপ্রণ করবে। তারা আগে জানিয়েছিল, ২ থেকে ১২ জুলাইয়ের মধ্যে বাকি পরীক্ষাগুলি নেওয়া হবে। তবে নয়া সিদ্ধান্তের পর সেই বিজ্ঞপ্তি স্বাভাবিক কারণে বাতিল হয়ে যায়। মামলাটির ফের শুনানি হবে শুক্রবার।